১৭ জুলাই। মন্দিরে মায়ের সঙ্গে পুজো দেওয়ার ছবি দিয়েছিলেন আরএসএস-এর বিচারক তথা দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রাকেশ সিনহা। সেই ছবিই নাকি বাংলায় সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা তৈরি করছে। তাঁর বিরুদ্ধে জামিন অ‌যোগ্য ধারায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। (আরও পড়ুন- বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনের সামনে VHP-র বিক্ষোভ, সুষমাকে চিঠি ক্ষুব্ধ মমতার) 

ইন্ডিয়া টুডে-র প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, বসিরহাটে অশান্তির পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে তোষণের রাজনীতির অভি‌যোগ তুলে সরব হয়েছিলেন রাকেশ সিনহা। তাঁর বিরুদ্ধে ১২ জুলাই মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভি‌যোগে লেখা হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে রাকেশ সিনহা রাজ্যে ঘৃণা ছড়াচ্ছেন। রাকেশ সিনহা ট্যুইটারে ঠিক কী পোস্ট করেছিলেন? গত ৯ জুলাই তিনি মায়ের সঙ্গে উজ্জয়িনীর মহাকাল মন্দিরে পুজো দিতে গিয়েছিলেন। সেই ছবিই নাকি অস্থিরতা তৈরি করছে বলে দাবি অভি‌যোগকারী মনোজ কুমার সিংয়ের। তাঁর অভি‌যোগ, মায়ের সঙ্গে পুজো দেওয়ার ছবিটি বাংলায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করছে।

মেইল টুডে-কে রাকেশ সিনহার আইনজীবী ব্রজেশ ঝার বলেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধীদের মুখ বন্ধ করতে চাইছেন। বাক্ স্বাধীনতা খর্ব করতে পুলিশ ও প্রশাসনকেও তৃণমূলের বি টিম করেছেন তিনি। রাকেশ সিনহার কথায়, গত তিন মাসে মাত্র তিনটি ফটো ট্যুইটারে পোস্ট করেছি। একটা মহাকাল মন্দিরে মায়ের সঙ্গে, একটা মোহন ভাগবতের সঙ্গে আর একটা রাষ্ট্রপতি আমায় পুরস্কার দিচ্ছেন। এই তিনটে ছবি কি সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা তৈরি করছে? 

এব্যাপারে কোনও মন্তব্য করতে চাননি তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন।(আরও পড়ুন- বসিরহাটকাণ্ডের তদন্তে এনআইএ-র নজরে রাজ্যের অনুমোদনহীন মাদ্রাসাগুলি)