নয়া দিল্লি, ২০ মে : কেজরিওয়াল, মায়াবতীদের কা‌র্যত খোলা চ্যালেঞ্জ জানালেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার নাসিম জাইদি।

শনিবার দিল্লিতে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে ইভিএমের কা‌র্যকারিতা সাংবাদিকদের কাছে হাতেকলমে দেখানোর ব্যবস্থা করে কমিশনে। সেখানে জাইদি বলেন, আগমী ৩ জুন থেকে ইভিএমের বিশ্বাস‌যোগ্যতা পরীক্ষা করে দেখতে পারে সব রাজনৈতিক দল।(আরও পড়ুন : ধর্ষক সাধুবাবার পুরুষাঙ্গ কেটে নিল কেরলের ‌যুবতী)


মুখ্য নির্বাচন কমিশনার আজ বলেন, ‌যারা ইভিএম হ্যাক করার কথা বলছেন তারা এখনও প‌র্যন্ত কোনও প্রমাণ দেখাতে পারছেন না। দেশের পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের পর এরকম একটি অভি‌যোগ উঠেছিল। কিন্তু কোনও শক্ত প্রমাণ কেউ তুলে ধরতে পারেনি। আমাদের ইভিএম কোনও ভাবেই হ্যাক করা সম্ভব নয়।


কোনও কোনও মহল থেকে আভি‌যোগ উঠেছিল ইভিএমে ‌যে মাইক্রো চিপ ব্যবহার হয় তা বদলে ফেলা ‌যায়। এনিয়ে বলতে গিয়ে জাইদি বলেন, ইভিএমে কোনও ট্রোজান হর্স ব্যবহার করা ‌যায় না। ওই চিপে একটি ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন নম্বর থাকে। কোনও ভাবে তা বদল করা হলে তা ধরে ফেলা ‌যাবে।(আরও পড়ুন : মুক্তির আগেই ৩৫০ কোটি টাকার ব্যবসা করে নিল প্রভাসের ফিল্ম ‘সাহো’)

এনিয়ে একটি খোলা চ্যালেঞ্জের ব্যবস্থা করেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ৩ মে থেকে ওই হ্যাক করার পরীক্ষা শুরু হবে। ‌যে কোনও রাজনৈতিক দল মোট ৪টি ইভিএম বেছে নিয়ে হ্যাকিংয়ের চেষ্টা করতে পারে। আগামী ২৬ মে বিকাল পাঁচটা প‌র্যন্ত এর জন্য আবেদন করা ‌যাবে। ‌যারা আবেদন করবেন তারাই একমাত্র ইভিএম পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন।

জাইজি জানালেন-

আয়ারল্যান্ডের মতো দেশে ভোটের জন্য ‌যে ইভিএম ব্যবহার করা হয় তার থেকেও আমাদের ‌যন্ত্র আলাদা। এখানে হ্যাক করা অসম্ভব।

ইন্টারনেটের সঙ্গে কোনও সং‌যোগ থাকে না ইভিএমের। তাই একে হ্যাক করা অসম্ভব।