মুম্বই, ১৭ জুলাই। আঁতে ঘা লাগলে ‌যে শাসক-বিরোধীতে কোনও ফারাক নেই এদেশে ফের একবার প্রমাণিত হল এই সত্য। লাগাতার কংগ্রেসি বিক্ষোভের জেরে চলচ্চিত্র পরিচালক মধুর ভান্ডারকরকে পুলিশি নিরাপত্তা দিল মহারাষ্ট্রের বিজেপি সরকার। তাঁরে ২৪ ঘণ্টা পুলিশি পাহারার নির্দেশ দিয়েছে সেরাজ্যের প্রশাসন।

২৮ জুলাই মুক্তি পাবে মধুর ভান্ডারকরের সিনেমা ‘ইন্দু সরকার’‍। জরুরি অবস্থার প্রেক্ষিতে এই ছায়াছবির বিভিন্ন দৃশ্যে আপত্তি রয়েছে কংগ্রেসের। কংগ্রেসের দাবি, চলচ্চিত্রে ইচ্ছাকৃতভাবে ভিলেন করে তোলা হয়েছে ইন্দিরা গান্ধী ও তাঁর ছোট ছেলে সঞ্জয় গান্ধীকে। এমনকী বিশেষ রাজনৈতিক মতের লোকেদের কাছ থেকে ‘সুপারি’‍ নিয়ে মধুর এই সিনেমা বানিয়েছেন বলেও দাবি করেছেন কংগ্রেস নেতারা।

সিনেমা মুক্তির প্রতিবাদে গত কয়েকদিন ধরেই মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন কংগ্রেস কর্মীরা। কংগ্রেসের বিক্ষোভের জেরে বাতিল হয়েছে ‘ইন্দু সরকার’‍-এর একাধিক প্রচারমূলক অনুষ্ঠান। এই পরিস্থিতিতে মধুর ভন্ডারকরের জন্য বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে মহারাষ্ট্র পুলিশ।

জানা গিয়েছে, মধুর ভান্ডারকরের নিরাপত্তায় প্রতিদিন মোট ৪ জন নিরাপত্তারক্ষী নিয়োগ করা হবে। দিনে ২ জন ও রাতে ২ জন পুলিশকর্মী পরিচালকের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন। দরকার হলে বন্দুকধারী পুলিশকর্মীও মোতায়েন করবে প্রশাসন।

মজার কথা হল, সাত বছর আগে শাহরুখ খানের সিনেমা ‘মাই নেম ইজ় খান’‍-এর মুক্তির সময় বিরোধিতা করেছিল শিবসেনা। সেই সময় শাহরুখের পাশে দাঁড়িয়ে তার নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছিল মহারাষ্ট্রের তৎকালীন কংগ্রেসি সরকার। বাক স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের অভি‌যোগে শিবসেনার বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছিলেন কংগ্রেস নেতারা। কিন্তু সিনেমার সংলাপে ‘মা – বেটে কি গুলামি’‍ শুনেই সে সব ভুলে গিয়েছেন তাঁরা।