তিরুঅনন্তপুরম, ২০ মে : গডম্যানের লালসার হাত থেকে মুক্তি পেতে তার গোপানাঙ্গ কেটে নিলেন কেরলের এক ‌যুবতী। বহুদিন ধরেই ওই সাধুবাবা ওই তরুণীকে ধর্ষণ করতেন বলে অভি‌যোগ। এই ঘটনায় ওই ‌যুবতীর সাহসকে স্বাগত জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন।(আরও পড়ুন : গ্রেফতারি থেকে বাঁচাতে  জাকির নাইককে নাগরিকত্ব দিল সৌদি আরব!)


শুক্রবার রাতে ওই ঘটনা ঘটে কেরলের তিরুঅনন্তপুরমের পেট্টায়। অভি‌যুক্ত সাধুবাবার নাম গঙ্গেশ্বরানন্দ টিথাপাদাম ওরফে হরিস্বামী। এদিন সন্ধ্যায় ওই তরুণীকে ওই সাধুবাব ধর্ষণ করতে উদোগ নিতেই ওই তরুণী ওই ভয়ঙ্কর কাণ্ড করে বসেন। তার পরই তিনি এমার্জেন্সি ১০০ নম্বরে ডায়াল করে পুলিশে খবর দেন।

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই তরুণী ‌যখন ১২ বছরের কিশোরী তখন থেকেই ওই সাধুবাবা ওই কাণ্ড করতেন। টানা পনের বছর ধরে পেট্টার আশ্রমে রয়েছেন ওই সাধুবাবা।

যৌনাঙ্গ কাটা ‌যাওয়ার পর ওই সাধুবাবকে তিরুঅনন্তপুরম মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা ‌যাচ্ছে তার ‌যৌনাঙ্গের ৯০ শতাংশই কাটা পড়েছে। আপাতত তার রক্তক্ষরণ বন্ধ করা সম্ভব হয়েছে। তবে ওই কাটা ‌যাওয়া ‌যৌনাঙ্গা ফের জোড়া লাগিয়ে দেওয়া সম্ভব নয়।(আরও পড়ুন : প্রাক্তন বিধায়কের ছেলের গাড়ির বেপরোয়া গতি, পিষে দিল ৪ শ্রমিককে)


বেশ কয়েক বথর ধরে শ‌য্যাশায়ী ওই তরুণীর বাবা। পরিবারিক অশান্তির হাত থেকে বাঁচতে ওই বাবার শরনাপন্ন হত তার পরিবার। তারই সু‌যোগ নিয়ে আসছিলেন ওই সাধুবাবা। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তরুণীর সাহসকে সাবাসি জানিয়েছেন।