দেহারাদুন, ১৯ মে :  উত্তরাখণ্ডে প্রবল ভূমিধসে আটকে পড়লেন কমপক্ষে ১৫ হাজার প‌র্যটক।

শুক্রবার বিষ্ণুপ্রয়াগের কাছে বদ্রীনাথ ‌যাওয়ার রাস্তায় প্রবল ধস নেমে আসে। ধস সরিয়ে রাস্তা বের করার চেষ্টা হলেও আগামিকাল বিকালের আগে তার তা সরানো সম্ভব হবে না বলেই জানিয়েছেন বিষ্ণুপ্রয়াগের জেলাশাসক আশিষ ‌যোশী।(অারও পড়ুন : চূড়ান্ত হল পরিষেবা ক্ষেত্রে জিএসটির হার, স্বাস্থ্য-শিক্ষায় ছাড় )

ধসের ফলে ‌যোশীমঠ, কর্ণপ্রয়াগ, পিপালকোটি, গোবিন্দঘাট ও বদ্রীনাথে ১ থেকে দেড় হাজার প‌র্যটককে সব ধরনের সাহা‌য্য করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেথ আশিষ ‌যোশী। সংবাদ সংস্থার খবর অনু‌যায়ী, বিষ্ণুপ্রয়াগের কাছে হাতিপ্রয়াগের কাছ প্রথম ভূমিধস শুরু হয়।

শুক্রবার বিকাল সাড়ে তিনটে নাগাদ ধস প্রথম লক্ষ্য করা ‌যায়। ফলে প্রশাসন বদ্রীনাথ রুটে প‌র্যটকদের ‌যাতায়ত বন্ধ করে দেয়। এর ফলে বহু মৃত্যু অটকানো গেছে বলে মনে করা হচ্ছে। সংবাদ মাধ্যমের খবর অনু‌যায়ী বদ্রীনাথ রুটে এখন ৫০০ ‌যানবাহন আটকে রয়েছে।(আরও পড়ুন : নামাজ পড়াতে দেব না, টিপু সুলতান মসজিদে নামাজিদের তাড়া খেয়ে নাজেহাল বরকতি)

এমনিতেই উত্তরাখণ্ডের বহুএলাকা ভূমিকম্প ও ধসপ্রবণ। ২০১৩ সালে কেদারনাথ ও বদ্রীনাথে এক ভয়ঙ্কর ভূমিধসে মৃত্য হয় ১১ হাজার মানুষের। ওইসব এলাকায় একাধিক বেআইনি নির্মাণকে নিয়ে পরিবেশবিদরা বহুদিন থেকেই আপত্তি তুলে আসছিলেন। অনেক মনে করেন ভূমিধসের পেছন ওই অবৈধ নির্মাণও রয়েছে। ২০১৫ সালে একই ধরনের একটি ধসে বদ্রীনাথে আটকে পড়েছিলেন ৫০০ প‌র্যটক।