কলকাতা, ১৯ জুন। বিজেপির রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী রামনাথ কোবিন্দ নাপসন্দ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগ শহরের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। পথেই জানতে পারেন, বিহারের রাজ্যপাল রামনাথ কোবিন্দ হচ্ছেন এনডিএ জোটের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী। এরপরই মমতা নিজের আপত্তির কথা জানান। তিনি বলেন,”প্রণবদা, আডবানিজি এমনকি সুষমা স্বরাজের মতো কাউকে প্রার্থী করা হয়েছিল। আমি বলছি না তিনি রাষ্ট্রপতি পদের ‌যোগ্য নন।” (আরও পড়ুন- নোট বাতিলের পর ফের মোদীর মাস্টারস্ট্রোক, কালো টাকায় আর বেনামে সম্পত্তি কেনা ‌যাবে না)
মমতার কথায়, আপনি বিরোধী নেতাদের সঙ্গে দু-তিনটে নাম নিয়ে আলোচনা করেছিল। কিন্তু বিজেপি অবাক করে দিল। দেশে আরও অনেক বড় বড় দলিত নেতা ছিলেন। কিন্তু বিজেপি দলিত মোর্চার নেতা ছিলেন বলেই কোবিন্দকে প্রার্থী করা হল। তিনি আরও বলেন, এমন কাউকে প্রার্থী করা উচিত ছিল, ‌যিনি দেশের সংবিধান বোঝেন। দেশের সংবিধান রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেন রাষ্ট্রপতি। তাই প্রণববাবু, আডবানিজি এমনকি সুষমা স্বরাজের মধ্যেও কাউকে প্রার্থী করা ‌যেত।(আরও পড়ুন- “বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ছাড়, দেশভক্ত গোর্খাদের উপরে গুলি চালাচ্ছেন মমতা”)

রামনাথ কোবিন্দের ‌যোগ্যতা নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী। তবে রামনাথ কোবিন্দের ‌শিক্ষাগত‌যোগ্যতা নিয়ে কোনও প্রশ্নই থাকতে পারে না। ৭১ বছরের কোবিন্দ সুপ্রিম কোর্টে ওকালতি করেছেন। আইএএস পরীক্ষায় পাশ করেছিলেন। তবে তিনি ওকালতিই চালিয়ে ‌যান। ১৯৭৭ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মোরারাজি দেশাইয়ের আপ্ত সহায়ক ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর সমস্ত প্রশাসনিক কাজ সামলাতেন। ২০০২ সালে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সভায় দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন আইনজীবী কোবিন্দ সংবিধান জানেন কিনা, তা নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিলেন মমতা। বিজেপির খোঁচা, আবারও নিজেকে হাসির পাত্র করলেন তৃণমূল নেত্রী।(আরও পড়ুন- আশঙ্কা নয়, সত্যিই দেশকে বাঁচালেন মোদী, ডুবছে শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ)