নয়াদিল্লি, ১ ডিসেম্বর : সিনেমা হলে জাতীয় সংগীত বাজানো বাধ্যতামূলক করার প্রবল সমালোচনা করলেন লেখক চেতন ভগত।

গত ৩০ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেয় সিনেমা হলে ছবি শুরুর আগে পর্দায় ফুটে উঠবে জাতীয় পতাকার ছবি, বাজানো হবে জাতীয় সংগীত। উঠে দাঁড়িয়ে তাকে শ্রদ্ধা জানাতে হবে। সুপ্রিম কোর্টের ওই নির্দেশিকাকে ভিত্তিহীন বলে মন্তব্য করলেন লেখক চেতন ভগত।(আরও পড়ুন : এলাহাবাদের পরে রাজস্থানের স্কুলে জাতীয় সংগীত গাইতে বাধা?)

চেতন ভগত একাধিক ট্যুইট করে সুপ্রিম কোর্টের ওই নির্দেশকে কটাক্ষ করেছেন। লেখক বলেছেন, কারও ওপরে এভাবে জায়ীয়তাবাদ চাপিয়ে দেওয়া ব্যাক্তি স্বাধীনতা হরণ করার সামিল। কারও মধ্যে জোর করে ‌যদি জাতীয় সংগীত ঢুকিয়ে দিই তা হলে দেশের প্রতি তার স্বাভাবিক ভালোবাসা হারিয়ে ‌যাবে। আমাকে আমার মতো করে দেশপ্রেমী হতে দেওয়া হোক।


এ বছর এলাহাবাদ ও রাজস্থানের বাড়মেঢে দুটি স্কুলে জাতীয় পতাকা তুলতে অস্বীকার করা হয়। ওই দুটি স্কুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এবার জাতীয় সংগীত নিয়ে বিতর্ক তুলে দিলেন ভগত। সুপ্রিম কোর্টের ওই নির্দেশিকার সমালোচনা করতে গিয়ে ভগত প্রশ্ন করেন, তা হলে কোনও টিভি প্রোগ্রামের আগে জাতীয় সংগীত নয় কেন? খেলার আগে নয় কেন ? ‌যৌনসঙ্গম করার আগে জাতীয় সংগীত নয় কেন?( আরও পড়ুন : পাক শিল্পীদের জুতোপেটা করে দেশছাড়া কর, ফের বিতর্কে বিজেপি বিধায়ক সংগীত সোম)


ভগত তাঁর ট্যুইটে মন্তব্য করেছেন, দেশে এখ ফ্যাসিস্ত স্টাইলের জাতীয়তাবাদ তৈরি হচ্ছে। এদিকে দেশকে এগোতে দেওয়া ‌যায় না। আমি আমার দেশকে ও জাতীয় সংগীতকে ভালোবাসি। এটা চাপিয়ে দেওয়ার কী আছে!