নয়াদিল্লি, ১৯ জুন। বিহারের রাজ্যপাল রামনাথ কোবিন্দের রাষ্ট্রপতি হওয়ার পথে কোনও বাধাই রইল না। মোদীর মাস্টারস্ট্রোকে দিশাহারা বিরোধীরা। দলিত রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীকে নিয়ে কংগ্রেসের জোটেই ভাঙন ধরে গেল। ফলে কেআর নারায়ণনের পর কোবিন্দ হতে চলেছেন দেশের দ্বিতীয় দলিত রাষ্ট্রপতি। নীতীশ, কেসিআর, নবীন ও মায়াবতীর সমর্থন পাচ্ছে এনডিএ। গতকালই সমর্থনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মুলায়ম সিং ‌যাদব। (আরও পড়ুন- সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন আইনজীবী কোবিন্দের সংবিধান জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন মমতা)

বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার সরাসরি এনডিএ প্রার্থীকে সমর্থনের কথা জানাননি। তবে ইঙ্গিত দিয়েছেন। নীতীশের কথায়, এটা বিহারের জন্য গর্বের ব্যাপার। রাজ্যের রাজ্যপাল রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হয়েছেন। তাহলে কি তিনি সমর্থন দেবেন? নীতীশের কথায়, বিরোধীদের সঙ্গে কথা বলেই জবাব দেওয়া সম্ভব। জেডিইউ সূত্রের খবর, বিহারে প্রচুর দলিত থাকেন। এই পরিস্থিতিতে কোবিন্দকে সমর্থন করা ছাড়া উপায় নেই। একইঅবস্থা মায়াবতীর। তিনি বলেছেন, কোবিন্দ দলিত বলেই আমি সমর্থন করব। তবে অরাজনৈতিক প্রার্থীকে নির্বাচন করতে পারত এনডিএ। ‌কোবিন্দ আরএসএস-এর লোক। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ফোন করেছিলেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কেসিআর-কে। তিনি সমর্থন দিয়েছেন। ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী বিজেডি-র নবীন পট্টনায়েকও সমর্থন দিয়েছেন। ওদিকে গতকালই মুলায়ম এনডিএ প্রার্থীকে সমর্থন করার কথা জানিয়েছিলেন। দলিত প্রার্থীকে সমর্থন দেওয়া ছাড়া তাঁর কাছেও আর কোনও পথ খোলা নেই।(আরও পড়ুন- “বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ছাড়, দেশভক্ত গোর্খাদের উপরে গুলি চালাচ্ছেন মমতা”)

এদিন দিল্লিতে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করেন রামনাথ কোবিন্দ। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গেও কথা বলেছেন। কোবিন্দ এদিন বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিরও সমর্থন চেয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ট্যুইটারে জানিয়েছেন,”রামনাথ কোবিন্দ কৃষকদের ছেলে। তিনি রাষ্ট্রপতি হলে গরিব, খেটেখাওয়া মানুষ লাভবান হবেন।”(আরও পড়ুন- আশঙ্কা নয়, সত্যিই দেশকে বাঁচালেন মোদী, ডুবছে শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ)