নয়া দিল্লি, ১৭ জুলাই:  রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ক্রস ভোটিংয়ের সম্ভাবনা আগে থেকেই ছিল। এর জন্য দলের সাংসদদের কলকাতাতেই ভোট দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল তৃণমূলের পক্ষ থেকে। কিন্তু তাতেও এনডিএ প্রার্থীকে ভোট দেওয়া থেকে বিরত করা গেল না তৃণমূল বিধায়কদের।

(আরও পড়ুন : বসিরহাটকাণ্ডে জেএমবি -যোগ, ৩ জঙ্গির নাম বাংলাদেশকে দিল কলকাতা পুলিশ)

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে দলের পক্ষ থেকে কোনও হুইপ জারি করা ‌যায় না। ভোটও হয় গোপন ব্যালটে। তৃণমূল আগেই জানিয়ে দিয়েছিল তারা মীরা কুমারকেই ভোট দেবেন। সম্ভবত পশ্চিমবঙ্গ থেকেই বেশি ভোট পেতে চলেছেন মীরা কুমার। এরকম এক অবস্থায় ত্রিপুরার অন্ততপক্ষে ৬ তৃণমূল বিধায়ক ভোট দিলেন এনডিএ প্রার্থী রামনাথ কোবিন্দকে। অবশ্য আগেই এরা জানিয়ে দিয়েছিলেন ‌যে তারা কোবিন্দকেই ভোট দিচ্ছেন।


সোমবার ত্রিপুরার তৃণমূল বিধায়ক আশিস সাহা সংবাদ সংস্থাকে সাফ জানিয়ে দেন তারা রামনাথ কেবিন্দকেই ভোট দিয়েছেন। এটা তাদের সিপিএমের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ। কেন ভোট দিলেন এনডিএ প্রার্থীকে? আশিস সাহা জানিয়েছেন, রাজ্যে এখন প্রধান বিরোধী শক্তি বিজেপি। সিপিএম নয়। আর এই সিপিএমকেই উৎখাত করার ডাক দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী। এখন দেখা ‌যাচ্ছে বিজেপিকে ঠেকাতে সিপিএম ও কংগ্রেসকে সমর্থন করছে টিএমসি। তাই কোবিন্দকে ভোট।

(আরও পড়ুন : বিমান বন্দর থেকে গ্রেফতার সন্দেহভাহজন লস্কর জঙ্গি)

অন্যদিকে, রাজ্যের বিদ্রোহী তৃণমূল নেতা সুদীপ রায় বর্মণ সাংবাদিকদের জানান, আমরা আগেই জানিয়েছিলাম রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে সিপিএম ‌যে প্রার্থীকে সমর্থন করছে তাকে আমরা সমর্থন করব না। আমাদের ৬ বিধায়ক কোবিন্দকেই ভোট দিয়েছি।

সম্প্রতি কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে ‌যোগ দিয়েছিলেন ৬ বিধায়ক। এরা হলেন সুদীপ রায় বর্মন, আশিস সাহা, দিলীপ সরকার, দিবা চন্দ্র রানখোল, প্রাণজিত সিনহা রায় ও বিশ্ববন্ধু সেন। এরা আজ কোবিন্দকে ভোট দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন ‌যে তারা বিজেপিতে ‌যোগ দেওয়ার জন্য পা বাড়িয়েই রয়েছেন। অসমর্থিত সূত্রের খবর ওই ৬ বিধায়ক সম্প্রতি অমিত শাহের সঙ্গে দেখাও করেছেন। উল্লেখ্য, এদের আগেই বহিষ্কার করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।