নয়া দিল্লি, ১৭ জুলাই: উপ-রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে শেষপ‌র্যন্ত বেঙ্কাইয়া নাইডুর নামই ঘোষণা করল এনডিএ। সোমবার সারাদিন এনিয়ে জল্পনা ছিল। বিকালে বিজেপির সংসদীয় কমিটির বৈঠকে পর তা ঘোষণা করলেন অমিত শাহ।

এদিন এক সাংবাদিক সম্মেলনে অমিত শাহ বলেন, এনডিএ-র প্রার্থী হিসেবে বেঙ্কাইয়া নাইডুকেই বেছে নেওয়া হয়েছে। এনডিএর শরিকরা সবাই তাঁকে সমর্থন করেছে। আগামিকাল তাঁর মনোনয়ণপত্র জমা দেবেন বেঙ্কাইয়াজি।

(অারও পড়ুন : রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে এনডিএ প্রার্থীকেই ভোট দিলেন ৬ তৃণমূল বিধায়ক)


রামনাথ কোবিন্দকে রাষ্ট্রপতি পদপ্রাথী করে দলিত শিবিরে একটা জোরালো বার্তা ইতিমধ্যেই দিয়ে রেখেছে এনডিএ। এবার বেঙ্কাইয়াকে উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী করে দক্ষিণের রাজ্যগুলিকেও বার্তা দেওয়ার চেষ্টা হল। তাঁর বিরুদ্ধে ১৮ দলের বিরোধী শিবিরের প্রার্থী পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন রাজ্যপাল গোপালকৃষ্ণ গান্ধী।

বাজপেয়ী সরকারের আমলে কেন্দ্রের মন্ত্রী ছিলেন বেঙ্কাইয়া। মোদীর সরকারেরও মন্ত্রী। তার ওপরে দলের পক্ষে তিনিই দক্ষিণের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ নেতা। দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে বিজেপি ততটা শক্তিশালী নয়। তাই বেঙ্কাইয়াকে বেছে নিতে খুব বেশি দেরী হয়নি বিজেপির।

দলের নেতা হিসেবে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন বেঙ্কাইয়া। ১৯৯৩ সাল থেকে ২০০০ প‌র্যন্ত তিনি ছিলেন বিজেপির সাধারণ সম্পাদক। তার পরেই তাঁকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি করা হয়। ২০০৪ সালে ফের তিনি দলের সর্বভারতীয় সভাপতি পদে নির্বাচিত হন।

(আরও পড়ুন: ‘দস্তা’ বাদ, এবার থেকে শুধু ‘গুল’ দিয়েই স্বাগত জানাতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে)

বেঙ্কাইয়া সম্পর্কে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী এদিন ট্যুইট করেন, ওর পরিশ্রম করার ক্ষমতা ও জেদের বারবার প্রসংশা করেছি। ওঁর মতো একজনই উপরাষ্ট্রপতি পদে উপ‌যুক্ত প্রার্থী। সাধারণ কৃষক পরিবারের সন্তান বেঙ্কাইয়া বহুদিন ধরে সাধারণ মানুষের সঙ্গে থেকে রাজনীতি করছেন। বহুদিন সংসদে কাজ করার ওঁর অভিজ্ঞতা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, আগামী ৫ অগাস্ট উপরাষ্ট্রপতি পদে ভোটগ্রহণ করা হবে। মনোনয়ণ পত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৮ জুলাই।