রোজ উন্নত হচ্ছে প্র‌যুক্তি। আধুনিক প্র‌যুক্তি আরও সহজ ও সস্তা করছে রোজের জীবন। আধুনিক প্র‌যুক্তির ব্যবহারে আরও কা‌র্যক্ষম হয়ে উঠছে পুরনো ‌যন্ত্র। ‌যেমন ধরুন সিলিং ফ্যান। গরম কালে ‌যত জোরেই ঘুরুক গায়ে হাওয়া লাগে না বলে অভি‌যোগ অনেকেরই। কিন্তু মাসের শেষে বিদ্যুতের বিল দেখে ভিরমি খাওয়ার জোগাড় হয়। গরম কালে বিদ্যুতের বিল নিয়ে আতঙ্কে থাকেন না এমন মধ্যবিত্ত গৃহকর্তার দেখা পাওয়া মুশকিল। সেই সমস্যার সমাধান করতে এসে গিয়েছে আধুনিক প্র‌যুক্তি। এবার টিউব লাইটের খরচে ঘুরবে পাখা। আর বাকি টাকা কিস্তিতে জমিয়ে মোটা টাকার মালিক হবেন আপনি।

আরও পড়ুন – রোজ মাত্র ৩০ টাকা বিনিয়োগ করেই হতে পারেন কোটিপতি

কী এই নতুন প্র‌যুক্তি?

নতুন এই প্র‌যুক্তির নাম ব্রাশ লেস ডিরেক্ট কারেন্ট বা BLDC প্র‌যুক্তি। এতে অল্টারনেটিভ কারেন্টকে ডিরেক্ট কারেন্টে পরিণত করে মোটর ঘোরানো হয়। টোটো বা অন্য বিদ্যুৎচালিত গাড়িতে শক্তি ‌যোগায় এই ধরণের মোটর। এই মোটরের কা‌র্যক্ষমতা সাধারণ এসি মোটরের প্রা‌য় দ্বিগুণ। ফলে অর্ধেকেরও কম বৈদ্যুতিক শক্তি খরচ করে একই পরিমাণ ‌যান্ত্রিক শক্তির ‌যোগান দেন BLDC মোটর। এই প্র‌যুক্তির ব্যবহার করেই তৈরি হয়েছে সিলিং ফ্যান। ‌যা কা‌র্যত ঘোরে টিউব লাইটের খরচে।

‌সাধারণ সিলিং ফ্যান  ৭৫ ওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন হয়। মিনিটে ৩৫০ বার ঘোরে ফ্যানগুলি। সেখানে ৩৫ ওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন BLDC ফ্যান মিনিটে ৩৫০ – ৪০০ বার ঘোরে।

BLDC সিলিং ফ্যানের সুবিধা

১. শক্তির খরচ কম। ফলে ৭০ শতাংশ প‌র্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয় করে

BLDC মোটর চলে ডিরেক্ট কারেন্ট বা DC-তে। ‌যার পোলারিটি বদলায় না। ফলে অবিরাম বিদ্যুৎ সরবরাহ বজায় থাকে। ‌যার ফলে শক্তির খরচ অনেক কমে ‌যায়। এসি ফ্যানের ক্ষেত্রে এসির পোলারিটি সেকেন্ডে ৫০-৬০ বার বদলায় (দেশ ভেদে) ‌যার ফলে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্থায়ী হয় না। একই ‌যান্ত্রিক ‌কা‌র্যের ‌জন্য বেশি বিদ্যুৎ খরচ করতে হয়।

২. ঘর্ষণ কম, ফলে শক্তির অপচয় কম

ঘর্ষণ কম হওয়ায় শক্তির অপচয় কম হয়।

৩. দ্রুত চালু বা বন্ধ করা সম্ভব

BLDC মোটরে খুব দ্রুত গতি পরিবর্তন করতে পারে ফলে খুব দ্রুত ফ্যান সর্বোচ্চ বেগে ঘুরতে শুরু করে। ‌

 

BLDC-র সমস্যা

১. দাম

BLDC সিলিং ফ্যানের দাম সাধারণ ফ্যানের দুই থেকে তিন গুণ। ‌ভারতের বাজারে ৩০০০ – ৪০০০ টাকায় BLDC সিলিং ফ্যান মেলে। কিন্তু বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের ফলে কয়েক বছরেই দাম উঠে ‌যায়। সাধরণত প্রতি বছর গড়ে ৮০০ টাকার বিদ্যুৎ বাঁচায় BLDC সিলিং ফ্যান।

২. মেরামতি

এসি ফ্যানের তুলনায় BLDC সিলিং ফ্যানে অনেক বেশি বৈদ্যুতিন ‌যন্ত্রাংশ থাকে। সাধারণ ফ্যানে থাকে একটি মাত্র ক্যাপাসিটর। সেখানে BLDC ফ্যানে বিদ্যুৎ সরবরাহ করে একটি মাইক্রোচিপ। ‌যার বিগড়ে ‌যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, BLDC-ই ভবিষ্যৎ। ফলে আগামীতে আরও কমবে BLDC ফ্যানের দাম। CRT টেলিভিশনের মতো একদিন বিলুপ্ত হয়ে ‌যাবে আজকের এসি ফ্যান। প্রতিদিনের বদলে ‌যাওয়া প্র‌যুক্তির সঙ্গে তাল মেলাতে একটা সিলিং ফ্যান বাড়িতে লাগিয়েই দেখুন না।

আরও পড়তে ক্লিক করুন এখানে