বহু পুরুষই লুকিয়ে লুকিয়ে পর্ন দেখেন। স্মার্টফোন এসে ‌যাওয়ায় পর্ন দেখা এখন খুব সোজা। ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করে নিলেই হল। আগের মতো আর ঘুরে ঘুরে সিডি কিনতে হয় না। ফলে পর্নের প্রতি আসক্তি আগের চেয়ে বেড়েছে। পর্ন আসক্তি কী শরীরের উপরে প্রভাব ফেলে? তা নিয়ে অনেকেরই প্রশ্ন। সম্প্রতি American Urological Association-এ এনিয়ে একটি সমীক্ষা রিপোর্ট পেশ করা হয়। ৩১২ জন পুরুষের উপরে সমীক্ষা চালানো হয়েছে। সেই রিপোর্টে কী বলা হয়েছে?(আরও পড়ুন- পুরুষের লোমশ বুক হিল্লোল তুলছে নারীর শরীরে)

সমীক্ষায় মূলত জোর দেওয়া হয়েছে, পর্ন দেখলে শরীরে কী কী সমস্যা হতে পারে? সেক্সজীবনে ব্যাঘাত ঘটে কিনা, লিঙ্গোত্থানের সমস্যা হয় কিনা ইত্যাদি। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‌যেসব পুরুষরা পর্ন দেখে হস্তমৈথুন করেন, তাঁদের লিঙ্গোত্থানের সমস্যা দেখা ‌যায়। বরং ‌যাঁরা পার্টনারের সঙ্গে নিয়মিত সেক্স করেন, তাঁদের সেই সমস্যা নেই। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এনিয়ে চিন্তার কিছুই নেই। হতে পারে হস্তমৈথুনের সঙ্গে লিঙ্গোত্থানের কোনও সম্পর্কই নেই। হস্তমৈথুন ও সেক্সের মধ্যে আকাশ-পাতাল ফারাক। ফলে দুটোকে মিলিয়ে মেলা ঠিক নয়। হতেই পারে, ‌যাঁদের এখন সমস্যা আছে, তাঁদের ব্যবহারিক ক্ষেত্রে কোনও সমস্যাই দেখা গেল না।(আরও পড়ুুন- জাপানি তেল লাগবে না, ঘরেই বানিয়ে নিন প্রাকৃতিক ভায়াগ্রা, নেই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া)

তবে আরও একটি সমীক্ষা বলছে, পর্ন দেখলে আদতে পুরুষত্ব বাড়ে। মানে পর্ন দেখে পুরুষরা হস্তমৈথুন করেন। ফলে বিছানায় তাঁরা নতুন নতুন কিছু করার চেষ্টা করেন। পাশাপাশি তাঁরা পর্ন দেখায় অভিজ্ঞতাও বাড়ে। তবে বিশেষজ্ঞরা এটাও বলছেন, পর্ন দেখার অভ্যাস বেড়ে গেলে সমস্যা থাকতে পারে। এটা রোগের প‌র্যায়ের চলে ‌যেতে পারে। বিবাহিত জীবনেও অনেকে পর্ন দেখেন। তবে সেটা ‌যেন নিয়ন্ত্রণে থাকে।(আরও পড়ুন- মোটা মেয়ের সঙ্গেই আসল সুখ! কেন জানেন?)

সবমিলিয়ে বিশেষজ্ঞরা এটাই বলছেন, পর্ন ব্যক্তিগত বিষয়। দেখুন তবে নিয়ন্ত্রণ রেখে। সব জিনিসেরই ‌যেমন ভাল-মন্দ আছে। তেমন পর্নের আছে।