কলকাতা, ১৭ জুলাই। বাংলাদেশে হিন্দুদের উপরে নি‌র্যাতনের প্রতিবাদে গত ১জুলাই কলকাতায় বাংলাদেশ দূতাবাসের বাইরে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতা কর্মীরা। সেটা ভালো চোখে নেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কাজকর্মে রাশ টানতে চিঠি লিখেছেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ‘এই ধরণের বিক্ষোভে দুই দেশের সম্পর্কের অবনতি হতে পারে।’ (আরও পড়ুন- বাংলাদেশে হিন্দুদের ওপর অত্যাচারের প্রতিবাদে কলকাতায় পুড়ল শেখ হাসিনার কুশপুতুল)

বাংলাদেশে সাম্প্রতিককালে হিন্দুদের উপরে নি‌র্যাতন বেড়ে গিয়েছে। এর প্রতিবাদে ১ জুলাই কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাই কমিশনের সামনে বিক্ষোভ দেখায় বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কুশপুত্তলিকা পোড়ানো হয়। দেওয়া হয় হাসিনা বিরোধী স্লোগান। ঢাকা ট্রিবিউনের প্রতিবেদনের দাবি, VHP-র বিক্ষোভের দুসপ্তাহ পরে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই চিঠিতে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কাজকর্মে রাশ টানার আবেদন করেছেন। তিনি লিখেছেন, “হাসিনাকে অবমাননা করা হলে তা ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের পক্ষে সুখকর হবে না।” বিশ্ব হিন্দু পরিষদের আচরণকে চরম দায়িত্বজ্ঞীন আখ্যা দিয়েছেন মমতা। (আরও পড়ুন- বসিরহাটকাণ্ডের তদন্তে এনআইএ-র নজরে রাজ্যের অনুমোদনহীন মাদ্রাসাগুলি)

বিশ্ব হিন্দু পরিষদের প্রতিক্রিয়া,”তাদের সংগঠন কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে নয়। তাছাড়া বিজেপি বিশ্ব হিন্দু পরিষদকে নিয়ন্ত্রণ করে না। সুতরাং এই চিঠি কেন পাঠালেন, সেটা বোধগম্য নয়। বাংলাদেশে হিন্দুদের উপরে নি‌র্যাতন হলে সেই দায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেই নিতে হবে।’ (আরও পড়ুন- ‘বাংলাদেশে হিন্দুদের উপরে নি‌র্যাতন বাড়ছে’, বললেন সে দেশের সংখ্যালঘু সংগঠনের নেতা)