শান্তিনিকেতন, ৩০ নভেম্বর। গুরুদেবের বিশ্বভারতীতে তৃণমূলের ঝান্ডার তলায় চলছিল মদ্যপান। শাসকদল ঘনিষ্ঠ হওয়ায় হাতেনাতে ধরা পড়ার পরও অভি‌যুক্তদের ছেড়ে দিল বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

 

পড়ুন – লালুর ডিগবাজিতে চিৎপটাং মমতা

 

বিশ্বভারতী সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিশ্বভারতী ক্যাম্পাসের ভিতর অপূর্ব ছাত্রাবাসে মদ্যপান করছিল ৪ ছাত্র ও ২ ছাত্রী। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে তাদের হাতেনাতে ধরেন বিশ্বভারতীর নিরাপত্তা আধিকারিকরা। ঘর থেকে উদ্ধার হয়েছে ১০০-র বেশি মদের বোতল। উদ্ধার হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা। শাসকদল ঘনিষ্ঠ হওয়ায় ওই ছাত্রছাত্রীদের ছেড়ে দেয় কর্তৃপক্ষ।

সূত্রের খবর, মেরামতির জন্য বেশ কয়েকমাস আগেই খালি করে দেওয়া হয় অপূর্ব ছাত্রাবাস। ‌যদিও তার পরও সেখানে থাকতেন কয়েকজন ছাত্র। সম্প্রতি ভবনটির একতলার দু’‍টি ঘর ছেড়ে দেওয়া হয় জেলা পুলিশকে। সেখানেই চলছিল মদ্যপান।

এবিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছে কর্তৃপক্ষ। বিশ্বভারতীর প্রাক্তনীদের মতে, গোল্লায় গিয়েছে তাঁদের গর্বের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। অধ্যাপক ও প্রশাসকদের অধিকাংশই দুর্নীতিগ্রস্ত। কে কাকে শাসন করবে?